Posts

Showing posts from January, 2014

অপরূপ বাগান -আবুল হাসান

বয়েস -সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

আমার নাকি বয়েস বাড়ছে? হাসতে হাসতে এই কথাটা
স্নানের আগে বাথরুমে যে কবার বললুম!
এমন ঘোর একলা জায়গায় দুপাক নাচলেও
ক্ষতি নেই তো-
ব্যায়াম করে রোগা হবো, সরু ঘেরের প্যান্ট পরবো?
হাসতে হাসতে দম পেটে যায়, বিকেলবেলায়
নীরার কাছে
বলি, আমার বয়েস বাড়ছে, শুনেছো তো? ছাপা হয়েছে!
সত্যি সত্যি বুকের লোম, জুলপি, দাড়ি কাঁচায় পাকা-
এই যে দ্যাখো

দেখে সবাই বলবে না কি ছেলেটা কই, ও তো লোকটা!
এ সব খুব শক্ত ম্যাজিক, ছেলে কীভাবে লোক হয়ে যায়
লোকেরা ফের বুড়ো হবেই এবং মরবে,
আমিও মরবো
আরও খানিকটা ভালবেসে, আরও কয়েকটা পদ্য লিখে
আমিও ঠিক মরে যাবো-
কী, তাই না?
ঘুরতে ঘুরতে কোথায় এলুম, এ জায়গাটা এত অচেনা
আমার ছিল বিশাল রাজ্য, তার বাইরেও এত অসীম
শরীরময় গান-বাজনা, পলক ফেলতেও মায়া জাগে
এই ভ্রমণটা বেশ লাগলো, কম কিছু তো দেখা হলো না
অন্ধকারও মধুর লাগে, নীরা, তোমার হাতটা দাওতো
সুগন্ধ নিই।

নীরা, শুধু তোমার কাছে এসেই বুঝি
সময় আজো থেমে আছে।

উৎস -দেবদাস আচার্য

একদিন এক যুবতী ‍স্বপ্ন দেখে ছুটে এসেছিল আমাকে কিছু বলার জন্যে
তার শরীরে ছিল শিহরণ, চোখে ছিল বর্শা ধার, আমি তার
কিছুই বুঝিনি তখন।

-এই তো সামান্য গল্প, কিন্তু
এই গল্পই আমাকে সারা জীবন বলে যেতে হবে
কেউ শোনে তো ভালই, নইলে মাঠে-ঘাটে যে কোনো একলা সময়ে
এই গল্পই করব। রাখালদের বলব গান বাঁধতে আর গ্রাম্য উপকথার মধ্যে
এই গল্পই চালিয়ে দেব। কোনো গম্ভীর পুকুর দেখলে নাম দেব স্বপ্নের পুকুর-
কোনো বাউলের সাকরেদ হয়ে জনপদে এই গল্পই গেয়ে বেড়াব
গাইতে গাইতে দু কশি বেয়ে ঝরবে আঠা, পোড়া কাঠ হয়ে যাবে শরীর।